কিভাবে ইমু একাউন্ট খুলতে হয় | Jemon Blog
ঢাকামঙ্গলবার - ৩১ আগস্ট ২০২১
  1. অনলাইন জব
  2. গল্প জানুন
  3. টেক আপডেট
  4. লাভ স্টোরি
  5. সাকসেস লাইফ
  6. সোস্যাল আপডেট
  7. হেলথ টিপস

কিভাবে ইমু একাউন্ট খুলতে হয়

যেমন ব্লগ ডেক্স
আগস্ট ৩১, ২০২১ ৪:২৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ad

ইমু একাউন্ট এবং এর উপকারিতা সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের সর্ব প্রথম জানতে হবে ইমু কি? ইমু:ইমু হচ্ছে একটি অ্যাপ। এটির মাধ্যমে অনলাইনে ভিডিও কলিং এবং অডিও কলিং করা যায় এবং এর মাধ্যমে বার্তা আদান প্রদান করা যায়। এখন মানুষ অধিক পরিমাণে ইমু ব্যবহার করেন।রিমাণে ইমু ব্যবহার করছে তাই আপনাদের মাঝে এখন আলোচনা করতে যাচ্ছি কিভাবে ইমু একাউন্ট খুলতে হয় তা সম্পর্কে।

আসলে ইমু চালানো অনেক সহজ তাই যাদের আত্মীয়-স্বজন বিদেশে থাকে তাদের পরিবারের লোকজন ইমো ব্যবহার করে। এর ফলে খুব সহজেই যোগাযোগ করতে পারেন। এছাড়াও যে কোন মানুষ মূর্খ ,অশিক্ষিত হোক না কেন সবাই এখন ইমু চালাতে পারে। কারণ এটি একটি সহজ যোগাযোগ মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। এছাড়াও ইমোতে নতুন আপডেট এর কারণে বিভিন্ন ধরনের বিনোদনমূলক ভিডিও দেখতে পায়।

ইমু শুধু যোগাযোগের মাধ্যম নয় বরং এই মুহূর্তে এখন অনেক ধরনের বিনোদন মূলক ভিডিও পাওয়া যায়। এছাড়াও চ্যাটিং করা যায় ,দিন দিন এর ব্যবহার অনেক ভাবে বেড়ে যাচ্ছে। মানুষ যতই ডিজিটাল যুগে যাচ্ছে ততই নতুন নতুন জিনিসের ব্যবহার করছে, এর মধ্যে ইমো প্রধান।

আরো পড়ুনঃ  মোবাইল দিয়ে আর্টিকেল লিখে এডসেন্স পাওয়া

কিভাবে একটি ইমু একাউন্ট খুলা যায় :

ইমু একাউন্ট খুলতে গেলে আমাদের সর্ব প্রথম যেটি প্রয়োজন তা হল ইমু অ্যাপ। এখন প্রশ্ন হচ্ছে আমরা ইমু অ্যাপটি কোথায় পাবো? এই ইমু অ্যাপটি আমরা (Google play store) গুগল প্লে স্টোর এ পাবো। গুগল প্লে স্টোর এ আমারা ইংরেজিতে (imo) ইমু লিখে সার্চ করলেই অ্যাপ চলে আসবে সেখান থেকে আমরা এই অ্যাপ টি ডাউনলোড করে নিবো।

ad

যে নাম্বার দিয়ে আপনি ইমু একাউন্ট খুলতে চান, সেই নাম্বার ভেরিফাই করতে হবে।

যেভাবে ভেরিফিকেশন করবেন :

প্রথমে(verify phone) ভেরিফাই ফোন এ আপনি যে নাম্বার এ ইমু একাউন্ট করবেন সেটা ফোন নাম্বার দিবেন। ইমু তে পৃথিবীর অনেক দেশেরই নাম রয়েছে। ইমু তে A to Z সকল দেশের নাম রয়েছে। সেখানে থেকে আপনাকে নিজের দেশের নাম এবং (country code) কান্ট্রি কোড সিলেক্ট করতে হবে এবং এই গুলা (নিজের দেশের নাম ও কান্ট্রি কোড) সহ আপনি যেই নাম্বার এ ইমু একাউন্ট তৈরি করতে চান সেটা দিবেন।

Please confirm your phone number (প্লিস কনফার্ম ইউর ফোন নাম্বার) এখানে দেশের কোড সহ ফোন নাম্বার দিবেন এবং (ok) ওকে বাটন এ ক্লিক করবেন। তারপর আপনি যেই নাম্বার দিবেন সেই নাম্বার এ ত্রিশ সেকেন্ড এর মধ্যে একটি ভেরিফাই কোড যাবে। সেই ভেরিফাই কোড টি কপি করে, কোড এর ঘরে সিম এর sms কোড টা পেস্ট করে দিবেন।

আরো পড়ুনঃ  ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর সুবিধা

আতঃপর Enter Name (ইন্টার নেম)

এন্টার নেম এ আপনার সম্পূর্ণ নাম প্রবেশ করবেন এবং ডান এ ক্লিক করাবেন। এর আর্থ হচ্ছে আপনার ইমু একাউন্ট যেই নামে তৈরি করতে চান সেই নাম দিয়ে ডান লিখাতে ক্লিক করে দিবেন।

প্রোফাইল তৈরী :

আপনি আপনার একাউন্ট এ একটা প্রোফাইল সিলেক্ট করবেন। তবে নিজের ছবি ব্যবহার করাই উত্তম। যাতে আপনার পরিচিত রা আপনার ছবি দেখে সহজেই চিনতে পারে। তারপর আপনার একাউন্ট একটিভ (successful) হয়ে যাবে।

আপনি আপনার contact এ গিয়ে আপনার ইমু ব্যবহার কারি ফ্রেন্ড দের সাথে কথা বলতে পারবেন। আপনার সাথে কথা বলার জন্য তাদের ইনভাইট করতে পারবেন। অডিও ভিডিও কলিং এ তাদের সাথে কথা বলতে পারবেন।

ইমু ব্যবহার এর উপকারিতা বা সুবিধা :

আমারা আমাদের প্রয়োজনে বিভিন্ন সাইট ব্যবহার করে থাকি তার মধ্যে ইমু একটি। বর্তমানে বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশে ইমু ব্যবহার করা হয়। বাংলাদেশেও এর মধ্যে রয়েছে। ইমু ব্যবহার করে এক জন ব্যক্তি তার বন্ধু, পরিচিত সকলের সাথে কথা বলে থাকে। তাদের খোঁজ খবর নিয়ে থাকেন। ইমু ব্যবহার করে মেসেজ chat করা যায়, অডিও, ভিডিও ফুটেজ পাঠানো যায়। অডিও কলে এবং ভিডিও কলে কথা বলা যায়। বিভিন্ন প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট, লিংক পাঠানো যায়।

আরো পড়ুনঃ  কিভাবে নিস বাছাই করবেন

বন্ধুদের সাথে Group vedio call এ কথা বলা যায়। ২০১৯ সালের এক প্রতিবেদনে জানা গিয়েছে ইমু ব্যবহার কারির সংখ্যা বাংলাদেশে ৮ শতাংশের বেশি। বর্তমানে ২০২১ এর ব্যাবহার কারীদের সংখ্যা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। ইমো এ কারণে অনেক মানুষের যোগাযোগ মাধ্যম দ্বারা অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে এটি ব্যবহার করার সুবিধা পায় এবং সহজ বলে।

এর মধ্যে তিন হাজার কোটির বেশি আন্তর্জাতিক মেসেজ এবং আড়াই হাজার কোটির বেশি আন্তর্জাতিক কল। ইমু ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাংলাদেশে রেকর্ড ছুঁয়েছে।ইমু আমাদের যোগাযোগ এর জন্য খুবই প্রয়োজনীয় একটি মাধ্যম।