তোমার ভালোবাসার রূপকথা • পর্ব-১০ | Jemon Blog
ঢাকাসোমবার - ২৯ নভেম্বর ২০২১
  1. অনলাইন জব
  2. গল্প জানুন
  3. টেক আপডেট
  4. লাভ স্টোরি
  5. সাকসেস লাইফ
  6. সোস্যাল আপডেট
  7. হেলথ টিপস

তোমার ভালোবাসার রূপকথা • পর্ব-১০

যেমন ব্লগ ডেক্স
নভেম্বর ২৯, ২০২১ ৫:২২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ad

যেহেতু আমি একা গাড়ি চালাতে পারি তাই গাড়ি চালানো আমার জন্য নিষেধ করে দিয়েছে আমার সাথে কে তাই আমি নিজে আর স্টারিং করছি না ড্রাইভের রয়েছে উনি নিজেই গাড়ি চালাচ্ছে আমি পিছনে বসে থাকি। ভালোবাসা! ভাবে কয়েক দিন যাওয়ার পর দুজনেই এখন আল্লাহর রহমতে খুব বেশি সুস্থ হয়েছে আগের মতোই স্বাভাবিক হয়ে গেছে এখন বিয়ের পালা।

যেহেতু আমরা দুজনেই এখন পারিবারিক এবং শারীরিকভাবে অনেক সুস্থ হয়েছে তাই বিয়ের সমস্যা নিয়ে আসব টেনশন নেই। এখন আমরা দুজনেই প্রস্তুত। আগামীকাল আমাদের বিয়ে আমাদের শপিং করা থেকে সবকিছু একদম রেডি আগামীকাল অর্থাৎ আমরা রুপাদের বাসায় যাব রুপাকে তুলে আনার জন্য অনুরূপভাবে আগামীকাল আমরা আমাদের পক্ষ থেকে আমার অফিসের কর্মকর্তা এবং একজন মানুষ এবং ওদের বাসার পাশে একটা ফ্ল্যাট ফাঁকা ছিল সেখানে খাওয়া-দাওয়ার পর সবাইকে নিয়ে এবং ইসরাত কে নিয়ে চলে আসলাম। ভালোবাসা

স্বাভাবিকভাবে তিনদিন পরে রুপাদের বাসা থেকে সবাই আসলো এবং তাদের আত্মীয়-স্বজন সহ বেশ কয়েকজন আসলো তারা এসে এখানে খাবার খেলো সবাই আলহামদুলিল্লাহ সবকিছু ঘুরে দেখে সবাই বহুৎ খুশি হয়েছে। ভালোবাসা

আরো পড়ুনঃ  তোমার ভালোবাসার রূপকথা • পর্ব-৯

অতঃপর আমাদের বিয়ে সম্পুর্ন হলো আলহামদুলিল্লাহ আমাদের সামনের দিনগুলো খুব ভালো ভাবে কেটে যাচ্ছে আমরা বহুৎ খুশি হচ্ছি। আমাদের সাংসারিক জীবন প্রায় এক বছর হতে চলেছে সবকিছু আলহামদুলিল্লা খুব ভালোভাবে কেটে যাচ্ছে। ভালোবাসা সংসার জীবনে আমরা দুজনেই খুশি আমাদের আলাদা ব্যবহার সবকিছুতে আমাদের আম্মু আব্বু সবাই খুশি। ভালোবাসা

ad

অতঃপর তিন বছর হয়ে গেল এখন আমরা একটা সন্তান নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি আমি আর ইসরাত হোসেনের সিদ্ধার্থ করলাম একটা সন্তান নিলে কেমন হয় যেহেতু বাসা অনেক সময় ফাঁকা থাকে তাই আমরা সন্তান নেয়ার প্রস্তুতি করলাম আলহামদুলিল্লাহ আমাদের প্রস্তুতি চলছে। ভালোবাসা

তোমার ভালোবাসার রূপকথা • পর্ব-৯

এরমধ্যে রুপার বয়স হয়ে গেছে রুপা কে বিয়ে দিতে হবে রুপার বিয়ের জন্য ছেলে খুজতাছি ভালো ছেলে পাও যদি এখন ট্রাফিক তারপরেও ছেলে খুঁজতে থাকলাম আলহামদুলিল্লাহ বেশ কয়েকদিন খোঁজাখুঁজি পড়ে একটা ভাল ছেলের সন্ধান পেলাম এবং সেটা হচ্ছে আমার নিজের অফিসে ওখানে একটা ছেলে জব করে খুবই শিক্ষিত এবং খুবই মেধাবী তাগরে মধ্যবিত্তদের মন খুব ভালো ওদের পরিবারের ৫ জন ওর আব্বু আম্মু ওর একটা বোন একটা ভাই আরো নিজে।

আরো পড়ুনঃ  তোমার ভালোবাসার রূপকথা • পর্ব-৮

ওদের ফ্যামিলির সাথে কথা বলে আমার খুবই ভালো লেগেছে আর এখন আমি নিজে ডিসিশন নিয়েছি আমি আব্বুকে জানালাম যে এই ঘটনা গুলো যদি ভালো মনে হয় তাহলে চল দেখে আসি হবে পরিবার কেমন সবকিছু দেখে আসলাম আলহামদুলিল্লা ভালই লেগেছে পরিবারের সাথে আমরা আবদ্ধ হতে আর কোন সমস্যা নেই আমরা জয়ী হয়েছি।

অতঃপর রুপার বিয়ে খুব শিগগিরই হতে যাচ্ছে শপিং সবকিছু মিলিয়ে চলছে বিশেষ আয়োজন ওদিকে রুপার জন্য যে ছেলে ঠিক করেছে ওই ছেলে আমার অফিসে চাকরি করে ভাল একটা পোস্ট দিয়েছি ওকে ভাল পারফর্ম করেছে আমার অফিসে যারা চাকরি করে তাদের মেধা এবং এক্সপ্রেস এর উপর ভিত্তি করে আমি তাদেরকে পোস্ট দিয়ে থাকি।

চলে যাচ্ছে আমাদের সময়গুলো আজকে রুপার বিয়ে সবকিছু তৈরি আলহামদুলিল্লাহ বিয়েটা সম্পূর্ণ হলো সবাই অনেক মজা করলাম অনেক আনন্দ করা হলো রুপো যখন বাসা থেকে নেমে যাচ্ছে সবাই ভেঙে পড়ছে কান্নাকাটি নিয়ে। ব্যক্তিগতভাবে আমি নিজেও কেমন যেন ফিল করতেছি প্রচুর কান্না পাচ্ছে কিন্তু আমি কান্না আটকে ধরে রেখেছি কিন্তু কোনভাবে আটকে ধরতে পারছি না মনে হচ্ছে যেন আমার শক্তি একটা হারিয়ে যাচ্ছে হঠাৎ করে আমার চোখ থেকে পানি পড়তে লাগল আমরা বুঝতে পারব আমাকে জড়িয়ে ধরে জোরে কান্না করতে লাগলো।

আরো পড়ুনঃ  তোমার ভালোবাসার রূপকথা • পর্ব-৩

আমি বললাম কান্না করিস না এটা সব মেয়েদের জীবনে হয়ে থাকে। বললাম সব মেয়েদের এভাবেই বাপের বাড়ি ছেড়ে নিজের বাড়িতে চলে যেতে হবে এটা অস্বাভাবিক কিছু না এইগুলো বুঝিয়ে-শুনিয়ে গাড়িতে উঠিয়ে দিলাম অতঃপর তারা নিজ গন্তব্যে চলে গেল হামদুলিল্লাহ তারা কোন সমস্যা ছাড়াই বাড়িতে পৌঁছাতে পেরেছে। পরেরদিন আমি আর আব্বু গিয়ে রুপাকে দেখা দিয়ে আসলাম।

পরবর্তীতে কয়েকদিন পর রুপা এবং ওর হাজবেন্ড আমাদের বাসায় বেড়াতে আসলো খুব ভালভাবে চলছে এখন আমাদের ফ্যামিলির পর ফ্যামিলির সব কিছু আলহামদুলিল্লা খুব ভালো ভাবে কেটে যাচ্ছে সবকিছু খুব ভালোভাবে হচ্ছে আমাদের ভালো লাগছে আমাদের ফ্যামিলির সবাই একসাথে আছে আমাদের একটা কন্যা সন্তান হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ খুব কিউট হয়েছে খুব আদরের দিব্যা।