ভালোবাসার অন্যতম গল্প | পর্ব-২ | Jemon Blog
ঢাকাশুক্রবার - ২৬ নভেম্বর ২০২১
  1. অনলাইন জব
  2. গল্প জানুন
  3. টেক আপডেট
  4. লাভ স্টোরি
  5. সাকসেস লাইফ
  6. সোস্যাল আপডেট
  7. হেলথ টিপস

ভালোবাসার অন্যতম গল্প | পর্ব-২

যেমন ব্লগ ডেক্স
নভেম্বর ২৬, ২০২১ ৩:৫৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ad

আগের পর্ব! অতঃপর এভাবেই চলতে থাকে আমাদের ভালোবাসার টইটুম্বুর। আমি রূপাকে বলে উঠলাম আপনি যেই পরিমান কিউট কিউট এটা তো আপনার বয়ফ্রেন্ড থাকার কথা আর যে মেয়েদের বয়ফ্রেন্ড আছে তারা তো কলেজের ফ্রি টাইম এখানে বসে থাকেন তাহলে অবশ্যই বয়ফ্রেন্ডের সাথে চ্যাটিং করে কিংবা তার সাথে আড্ডা দেয় এটাকে স্বাভাবিক রুপা আমাকে বলল আচ্ছা আমাকে দেখে কি মনে হয় আড্ডা দেয়ার মত মেয়ে অথবা আমার বয়-ফ্রেন্ড আছে আমি বললাম মনে না হওয়ার কি আছে?

রুপা মাকে বলল আপনি একটু হলেও বেশি বুঝেন এবং অ্যাডভান্স লেভেলের আমি বললাম কোন খারাপ কিছু বলেছে কিংবা আপনার ভাল লাগে না এমন কিছু বলেছি আমি রুপা বললো হ্যাঁ ভাল লাগেনি এমন কিছুই তো বলেছেন আমি বললাম কই এমনটা তো আমার মনে হচ্ছে না রুপা বলল ভাল করে মনে করে দেখেন আমি বললাম ও আচ্ছা বয়ফ্রেন্ডের বিষয়টি, রুপা বলল হে আমার কোনো বয়ফ্রেন্ড নেই আমি সিঙ্গেল ভালো মেয়েদের বয়ফ্রেন্ড থাকলে তারা কখনো রিলেশন করে না।

আমি বললাম ও আচ্ছা তাহলে যারা রিলেশন করে যারা ভালোবাসে তারা খারাপ রুপা বললো খারাপ না অবশ্য কিন্তু তাদের উদ্দেশ্য খারাপ থাকে তাদের অনেকের উদ্দেশ্য ভালোবাসো এটা কোন অপরাধ না কিন্তু এটা খারাপ কাজে ব্যবহৃত হয় বেশিরভাগ তাই তাদের উদ্দেশ্য গুলো খারাপ হয়ে থাকে। আমি বললাম আচ্ছা আপনি সবাইকে একই দাড়িপাল্লায় মারতেছন।

আরো পড়ুনঃ  কিভাবে নিস বাছাই করবেন

কথা বললেন না সবাই না তবে অধিকাংশ বলা যেতে পারে আমি বললাম সময় অধিকাংশ না খুব কমসংখ্যক ভালোবাসার মানুষ রয়েছে যারা খারাপ কাজে নিজেদের কে ব্যবহার করে থাকে যারা ভালবাসাটাকে খারাপ কাজের জন্য করে থাকে কিন্তু বেশিরভাগ সময় দেখবে ভালোবাসা খারাপ কাজ নয় বরং ভালো কাজে ব্যবহৃত হয়।

ad

আমি বললাম আচ্ছা আমরা কি এখানে শুধু খারাপ ভালো নিয়ে আলোচনা করব নাকি কিছু খেতে পারি রুপা বলল হ্যাঁ অবশ্যই পারি কি খাবেন বলেন আমি বললাম যেভাবে বলতেছেন মনে হচ্ছে আপনি খাওয়াবেন এভা বলল আমি খাওয়াবো সমস্যা কি আমি বললাম ঠিক আছে কি খাবেন বলুন।

লোপা বললো আপনার যা খেতে এসছে সেটা পালন করতে পারেন আমি বললাম না থাক যেহেতু আপনি খাওয়াবেন আপনি বিল দিবেন সুতরাং আপনি অর্ডার করুন কথা বলল ঠিক আছে আপনি কি খেতে পছন্দ করেন আমাকে বলেন আমি বললাম আমার সব খাবারই পছন্দ সমস্যা নেই আপনি যেগুলো ডিজার্ভ করেন যেগুলো পছন্দ করেন সেগুলো আমি খেতে পারব।

রুপা বল আচ্ছা তাই নাকি তাহলে ঠিক আছে আমি অর্ডার দিচ্ছি তারপর রুপা খাবার অর্ডার দিলাম দুজনে খেলাম আরও বেশ সময় এখানে গল্প করলাম বিভিন্ন বিষয়ে কথা বললাম। অতঃপর ফুট কয় প্রশ্ন করে বসলো আপনার গার্লফ্রেন্ডের বাসা কোথায়। আমি বুঝতে পারলাম রুপা এটা জানতে চাচ্ছি যে আমার গার্লফ্রেন্ড আছে কিনা আমি বললাম এইতো একটু সামনেই আমার গার্লফ্রেন্ডকে বাসা, আমি লক্ষ্য করলাম রুপা হঠাৎ করে ধরে নিচের দিকে তাকিয়ে রইল আমি বুঝতে পারলাম এটা শুনে ওর মন খারাপ হয়ে গেছে।

আরো পড়ুনঃ  ওয়েবসাইট তৈরি করার সরঞ্জাম সমূহ

আল বললাম আমার গার্লফ্রেন্ডের বাসায় যাবেন রুপা বলো না আপনার গার্লফ্রেন্ডের বাসায় আমি যাবো কেন, এই কথা বলে তপা বললো আচ্ছা আজ আমি উঠে আমার কাজ আছে। আমি বললাম কাজ আছে নাকি নাকি কিছু হিংসে হচ্ছে? রুপা বলল বুঝলাম না আপনার কথা আমি বললাম ঠিক আছে তাহলে আপনার কাজে যান আর আমিও আজকে আছি অন্য দিন সবার কথা হবে।

ঠিক আছে। রুপা কাজের অজুহাত দেখিয়ে এখান থেকে চলে গেল অতঃপর আমি একা একা বসে বসে অনেকটা সময় মুচকি মুচকি হাসলাম এবং ভাবতে লাগলাম মেয়েরা কতটা হিংসুটি হয়ে থাকে। একটা ছেলেকে ভালো লাগলে সেই ছেলেটির প্রেমিক আছে জানলে কতটা মন খারাপ করতে পারে বিষয়টা আজকে আমি দেখলাম এবং কনফার্ম হলাম।

অতঃপর রুপার সাথে ফোন আলাপ হলো রাতে আমি তখন বললাম আচ্ছা আমি গার্লফ্রেন্ড আছে এটা বললাম পরে আপনার মন খারাপ হল কেন রুপা বলবো কই তোমার মন খারাপ হবে কেন আমি বললাম শোনো আমার কোন গার্লফ্রেন্ড নেই চাইলে আপনি গার্লফ্রেন্ড হতে পারেন তাই নাকি?

আরো পড়ুনঃ  ফেসবুক একাউন্ট খোলার নিয়ম

আমি বললাম হ্যা তাই। অতঃপর শুধু পাগল না ঠিক আছে যান আপনার গার্লফ্রেন্ড হয়ে গেলাম কালকে দেখা করেন আপনার জন্য শাস্তি প্রস্তুত করতেছি। এভাবে আমাদের ভালোবাসার কাহিনী গুলো সামনের দিকে এগোতে থাকে এবং অতঃপর আমরা এখন বিয়ের জন্য নিজের প্রফেশন নিচ্ছি।