ভূতের ঘটনার সত্যতা প্রকাশে আমরা ছিলাম - পার্ট ১ | Jemon Blog
ঢাকাসোমবার - ১৫ নভেম্বর ২০২১
  1. অনলাইন জব
  2. গল্প জানুন
  3. টেক আপডেট
  4. লাভ স্টোরি
  5. সাকসেস লাইফ
  6. সোস্যাল আপডেট
  7. হেলথ টিপস

ভূতের ঘটনার সত্যতা প্রকাশে আমরা ছিলাম – পার্ট ১

যেমন ব্লগ ডেক্স
নভেম্বর ১৫, ২০২১ ২:২৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ad

ভূতের ঘটনার সত্যতা! একটু সামনে আঘাতেই দেখি আমি একটি লাশ এভাবে পড়ে আছে। আমি আলীমকে বললাম দেখো এখনো কি তোমার অদ্ভুত কিছু মনে হচ্ছে না? আমার সাথে থাকা হালিম বলল না এগুলো হতেই পারে। আমরা সামনের দিকে লাইক মারতে দেখলাম আমাদের সামনে একটি অনেক পুরোনো কঙ্কাল ঝুলে আছে আমরা সাহস করে সেটাতে হাত দেওয়া মাত্রই সেটা খোশে পড়ে গেল। এবার আমি বুঝতে পারলাম না হালিম একটু হলেও আতঙ্কিত। ভূতের ঘটনা।

আলিফ সাহস করে সামনের দিকে আবার হাঁটা শুরু করল আমি বললাম চলো আমরা এখনো সময় আছে বেরিয়ে যাই হয়তো আমাদের জন্য কোন বিপদ অপেক্ষা করছে হালিম বলল আর কোনো বিপদ নেই তুমি আমার সাথে চলো সামনের দিকে আগাতে থাকি। আমি কোনো কথা না বলে একটু রাগ উন্নীত অবস্থায় সামনের দিকে হাটা শুরু করলাম এমন সময় দেখতে পেলাম আমাদের সামনে থেকে আবারও কিছু একটা দৌড় দিল সাদা পোশাক পরিধান কারী আমরা ওর দিকে লাইট মেরে না দিয়ে আমরা ওকে ফলো করে হাঁটা শুরু করলাম একপর্যায়ে বাড়ির শেষ প্রান্তে আমরা দ্বিতীয় তলায় ছিলাম এবং দ্বিতীয় তলার শেষ প্রান্তে গিয়ে পৌঁছলাম। ভূতের ঘটনার সত্যতা!

দ্বিতীয় তলার শেষ প্রান্তিকে পৌঁছানো মাত্রই দেখলাম আমাদের সামনে দিয়ে সাদা পোশাক পরিধান কারী দৌড় দিয়া একটি পেত্নী হুট করে গাছের ডালে চলে আসলো। আমরা ওকে দেখতে পাচ্ছি যে গাছের ডালে বসে আছে এবং অদ্ভুত চেহারা কিছুটা হলেও দেখা যাচ্ছে ওর পায়ের আকার এত বড় বড় লম্বা এখানে বলে বোঝানো সম্ভব না মোর পায়ের নখ গুলো ছিল খুবই কুৎসিত এবং অনেক বড়।

আরো পড়ুনঃ  সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটা ভ্রমণ

আমি বিষয়টি সুন্দরভাবে ফোন করলাম এবং আমার সাথে থাকা হালিমকে ফুস ফুস করে বলতে লাগলাম দেখ এবার এখানে কি হচ্ছে। এবার আমরা দুজন স্তব্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে আছি আর পেত্নী ওর নিজের শক্তিতে গাছের ডালে সুন্দর ভাবে দাঁড়িয়ে আছে। আমরা একই অবস্থানে দাঁড়িয়ে আছি আমি আগাচ্ছি না আর কোথাও নড়াচড়া করছে না একইভাবে পেত্নী নিজের অবস্থানে বসে আছে কোন নড়াচড়া করছে না আমাদের দিকে চেয়ে আছে। ভূতের ঘটনার সত্যতা

ad

ভূতের ঘটনার সত্যতা প্রকাশ

এবার আমরা পদক্ষেপ নিলাম ওকে হামলা করার জন্য আমরা সুন্দরভাবে ওর দিকে তাকিয়ে কিছু একটা ওর শরীরের উপর ছুড়ে মারার চেষ্টা করলাম অর্থাৎ আমাদের পায়ের কাছেই ছিল পুরনো কিছু ইটের খোয়া পাথর সেগুলো আমরা ওর দিকে ছোড়ার চেষ্টা করা মাত্রই হঠাৎ করে উধাও হয়ে গেল। আমরা দুজনেই এদিক ওদিক তাকাতে লাগলাম কোনদিন পাচ্ছিনা এরইমধ্যে দেখতে পারলাম আমাদের পিছনে একটি গাছের উপর বসে বসে হি হি করে হাসছে।

আমরা অপেক্ষা না করে আবার পাথর তুলে ওর গায়ে মার নাম এবং আমরা বুঝতে পারলাম একটা হলেও ওর শরীরে আঘাত করছে এবার আঘাত করা মাত্রই পেত্নী রেগে গিয়ে জোরে একটা চিত্কার করে ওর চিৎকারের শব্দ খুবই ভয় লাগছিল যদিও আমরা ঘাবড়ে যায় নিজেদের বুকে সাহস দেখে আমরা বললাম তুমি কেন এভাবে মানুষকে ভয় দেখাও?

আরো পড়ুনঃ  মেজাজ গরম প্রচুর

পেত্নী ওর ভাষার মাধ্যমে আমাদের কিছু বোঝানোর চেষ্টা করব কিন্তু আমরা কোনভাবেই ওর বাসা বুঝতে সক্ষম হলাম না আমরা বললাম আসলে তুমি কে তুমি কি কোন মানুষ? তখন পেত্নী আমাদের দিকে তাকিয়ে করুন সুরে কিছু বলার চেষ্টা করলো আমরা বুঝতে পারলাম ও আমাদের ক্ষতি করবে না এরপরে নিজ গতিতে আমাদের সামনে অনেকটা এগিয়ে আসলো এবং আমরা বুঝতে পারলাম না আমাদের কোনো ক্ষতি করবে না এবং আগামীর পরে দেখলাম অন্যদিকে দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে দিকে তাকাচ্ছে তখন বুঝতে পারলাম আমাদেরকে ডাকছে আমরা দুজনেই ওর সাথে হাটতে লাগলাম এভাবে বেশ খানিকটা দূরে যাওয়ার পরে খেয়াল করলাম অন্য কিছু। ভূতের ঘটনার সত্যতা

খেয়াল করলাম যে এখানে অনেকগুলো লাশ পড়ে আছে এবং সেগুলো কঙ্কাল হয়ে গেছে মনে হচ্ছে কয়েকযুগ পূর্বের লাস এগুলো। আমাদের বুঝতে বাকী নেই এগুলো ওই পেত্নীর পরিবারের সদস্য তখন বুঝতে পারলাম এই পেত্নী আসলে মানবজাতি। শুধুমাত্র প্রতিশোধ নেয়ার জন্য এগুলো করে বেড়াচ্ছে আমরা ওকে বললাম তুমি কথা বল এবং আমাদেরকে বল এই মৃত্যুর রহস্য আমরা তোমাকে সহযোগিতা করবো তখন ও আমাদের সামনে দাড়িয়ে মানুষের মতোই স্বাভাবিক ভাবে কথা বলা শুরু করলো। ভূতের ঘটনার সত্যতা

আরো পড়ুনঃ  ভালোবাসায় স্বর্গের সুখ

আমরা ওর কথা শুনে একটু সময়ের জন্য বুঝতে পারিনি এটা মানুষ নয় অন্য কোন প্রাণী। ৎ আমরা বললাম তাহলে তুমি মানুষ হয়ে কেন এভাবে করছ পেত্নী বলল আমি শুধুমাত্র আমার পরিবারকে যারা মেরে ফেলেছে তাদের কে মারার জন্য এমন করছি। আমি বললাম ও আচ্ছা তাহলে এই ঘটনা ঠিক আছে তুমি তাহলে কি চাও তুমি বলো আমি আমার পরিবারকে যারা মেরেছে তাদের সঠিক বিচার চাই এরপরে আমরা দুজনে সেখান থেকে বেরিয়ে পুলিশ খবর দিলাম এবং যথারীতি পুলিশ সেখানে চলে আসলো এবং আমরা তাদেরকে বুঝিয়ে বললাম এবং কঙ্কালগুলো তাদেরকে দেখলাম তারা সঠিকভাবে সবকিছু যাচাই করার পরে যারা তাদেরকে নিঃশর্তভাবে মেরে ফেলেছে তাদের করেছে এবং তাদের যাবত জীবন দিয়ে দিয়েছেন। ভূতের ঘটনার সত্যতা

অতঃপর সেই পেত্নী ছিল একজন সাধারণ মানুষ কিন্তু তিনি পেত্নীর বিষয়ে মানুষকে ভয় দেখাতেন এবং তাদের পরিবারকে যারা হত্যা করেছেন তাদের জন্য অপেক্ষা করতেন তারা কবে আসবেন তাদেরকে হত্যা করবে এজন্য। ভূতের ঘটনার সত্যতা!

এই গল্পের পার্ট-২ পড়ুন।