মোবাইল ফোন এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ সেটিংস | Jemon Blog
ঢাকাশুক্রবার - ৮ অক্টোবর ২০২১
  1. অনলাইন জব
  2. গল্প জানুন
  3. টেক আপডেট
  4. লাভ স্টোরি
  5. সাকসেস লাইফ
  6. সোস্যাল আপডেট
  7. হেলথ টিপস

মোবাইল ফোন এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ সেটিংস

যেমন ব্লগ ডেক্স
অক্টোবর ৮, ২০২১ ৪:১২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ad

বর্তমান সময়ে আমরা সকলেই মোবাইল ফোন ব্যবহার করে থাকি। এই মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে আমাদের অনেক সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়। তার মধ্যে আমারা সকলে আবার জানি না মোবাইল ফোন ব্যবহার এর বিভিন্ন সেটিংস সমূহ এবং কোন সেটিংস এর কি ধরনের কাজ। চলুন আজ এই ব্যাপারে জেনে নেওয়া যাক। মোবাইল ফোন এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ সেটিংস নিয়ে আপনাদের মাঝে কিছু কথা বলব।

মোবাইল ফোন এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ সেটিংস নিচে কিছু সেটিংস উল্লেখ করা হলো!

১. ফোনের ব্রাইট নেস :

ফোন এর ব্রাইট নেস এর মাধ্যমে আমরা ফোনের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি ও কমাতে পরি। আমরা যেই অবস্থায় যেভাবে, যেই আলো তে ফোন চালাতে চাইবো তাই করতে পারবো। আবার ব্রাইট নেস কম থাকলে ফোন এর চার্জ ও বেশি থাকে। এ জন্য ব্রাইট নেস ৫০% এর নিচে রাখা ভালো।

২. হোয়াইট নেস :

ফোন যদি আ্যমোলেড স্কিনের হয় তাহলে ওয়ালপেপার সেট করার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে। কলো রং এর পিক্সেল ভালো হবে কারণ কালো রং জ্বালাতে চার্জ বেশি কমবে না। বিভিন্ন ধরনের ফোনে বিভিন্ন সেটিংস অপারেটর ভিন্ন হতে পারে সে দিকে লক্ষ রাখতে হবে।

আরো পড়ুনঃ  ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর সুবিধা

৩. নতুন আ্যপ শর্টকাট :

কোনো কিছু গুগল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করতে গেলে শর্টকাট অপশন থাকে এই অপশন থেকে নতুন অ্যপ গুলো শর্টকাট এ বের করা যায় এবং ফোন ব্যবহার এ শর্টকাট পদ্ধতি অবলম্বন হয়।

ad

৪. ডু নট ডিস্টার্ব :

ফোন কল, মেসেজ বা এলার্ম সাইলেন্ট করে রাখার ক্ষেত্রে ডু নট ডিস্টার্ব মোড ব্যবহার করা হয়।

৫. ফাইন্ড মাই মোবাইল :

ফাইন্ড মাই মোবাইল ফোন ব্যবহার কারির জন্য আরেকটি দরকারী সেটিংস। এই ফিচার টি কাজে লাগাতে পারে ফোন হারানো গেলে বা ভুলে কোথাও রেখে আসলে। এটি ব্যবহার করা হয় থার্ড পার্টির আ্যপ ইউস করে অথবা বিল্ট ইন অপশন ব্যবহার করে। এটি চালু করা যায় গুগল সেটিং থেকে।

৬. ফোন সিকিউরিটি :

ফোন সিকিউরিটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটা সেটিংস। এর মাধ্যমে মোবাইল ফোনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়। কে আপনার ফোন নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন আর কে পারবে না। আপনার পার্সোনাল ইনফরমেশন যাতে সহজেই সকলে দেখতে বা খারাপ করতে না পারে সে বিষয় টি নিশ্চিত করা হয় ফোন সেটিংস এর সিকিউরিটি এর মাধ্যমে। এতে আপনি নিজের ইচ্ছা মতো সিকিউরিটি সিস্টেম চালু করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ  মাইক্রোফোন কেনার মাধ্যমে ইউটিউবিং শুরু করা

৭. আ্যন্ড্রয়েড সেটিংস পরিবর্তন :

বর্তমান সময়ে বহুল প্রচলিত ও ব্যবহৃত সার্চ ইঞ্জিন হলো গুগল। আমরা গুগলে যখন কোনো ভিডিও দেখি বা কন্টেন্ট পড়ি এর মাঝে হুট করে বিজ্ঞাপন সামনে চলে আসে এতে আমাদের পড়ার মানসিকতার ব্যাঘাত ঘটে। এর থেকে মুক্তি পাওয়া জন্য সেটিংস এ গিয়ে একাউন্ট এ ক্লিক করে গুগল এ প্রবেশ করুন। সেখানে থেকে এড লিখাতে ক্লিক করে ভেতরে ঢুকে opt out of add personalization অন করে দিতে হবে। এর পর থেকে আর বিরক্তিকর এড গুলো আসবে না।

৮. সিম কার্ড লক :

মোবাইল এ যোগাযোগ এর প্রান হলো সিম কার্ড। এতে আমাদের পার্সোনাল তথ্য ও থাকে। একাউন্ট নাম্বার, যোগাযোগ এর ব্যবস্থা, ব্যালেন্স টাকা, ইন্টারনেট এগুলো কেউ ব্যবহার করে নিতে পারে তাই সিম এ সিকিউরিটি দিয়ে সিম কার্ড লক অপশন ব্যবহার করা যেতে পারে।

৯. ব্লুটুথ অপশন :

ফোন ব্যবহার কারির থেকে কোন কিছু আনা নেওয়া করার জন্য এটি ব্যবহার করা হয়।

১০. ওয়াফাই :

বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে একটি নতুন মাত্রা যোগ করেছে ওয়াই ফাই। ওয়াই ফাই লাইন থাকলে এই অপশন টি অন করে এবং সঠিক পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে ডাটা ব্যবহার কারির আর ডাটা কেনার প্রয়োজন পড়ে না।

আরো পড়ুনঃ  ওয়ার্ডপ্রেস কি? এবং কেন এটি ব্যবহার করবেন? এর সুবিধা সমূহ!

১১. পার্সোনাল হটস পট :

এটি প্রায় সকল মোবাইল ফোনে রয়েছে। এটি ব্যবহার করার মাধ্যমে যদি কারো ফোনে ডাটা সমস্যা থাকে তাহলে তিনি অন্য করো ফোন থেকে খুব সহজেই এর মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবে।

১২. অন স্ক্রিন নোটিফিকেশন :

আমরা ফোন সব সময় আমাদের হাতে রাখি না, অনেক সময় অনেক কাজের ক্ষেত্রে ফোন রেখে যেতে হয়। তখন আমাদের আমাদের পার্সোনাল মেসেজ বা ইমেইল আসলে ফোনের স্ক্রিন এর উপর দেখা যায়। কিন্তু অন স্ক্রিন নোটিফিকেশন বন্ধ থাকলে আর দেখা যাবে না।

মোবাইল ফোন চালাতে হলে এসব সেটিং সম্পর্কে অধিক পরিমাণে জ্ঞান থাকা জরুরি ।কারণ প্রত্যেকটা কাজ সেটিংস অনুযায়ী করতে হয়।